সর্বশেষ প্রকাশ
Home / শ্রমিক নিয়োগ / নিয়োগের নীতিমালা কি? What is Recruitment Policy?
নিয়োগের নীতিমালা
নিয়োগের নীতিমালা কি What is Recruitment Policy

নিয়োগের নীতিমালা কি? What is Recruitment Policy?

নিয়োগের নীতিমালা

গ্র“প তার নিয়োগকৃত শ্রমিক ও কর্মচারীদের মৌলিক মানবিক অধিকার সংরক্ষণ করে ও সমুন্নত রাখে। ওয়াক্ফি নিয়োগের বা বেতনের বা প্রশিক্ষণের বা পদোন্নতির বা চাকুরীচ্যুতির ক্ষেত্রে জাতি, ধর্ম, গোত্র, বর্ণ, জাতীয়তা, প্রতিবন্ধিত, লিঙ্গ, যৌণমুখিতা, সংগঠনের সদস্য অথবা রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ততা কোন বিষয়েই বৈষম্যতা করে না এবং মহিলাদের সন্তান সম্বাবনার পরিক্ষা করা হয় না । যে কোন ব্যক্তি যে কোন পদের জন্য আবেদন করতে পারেন। সংশ্লিষ্ট পদের জন্য প্রযোজ্য মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে নিয়োগ প্রদান করা হয়।
দৈনিক পত্রিকা, ফ্যাক্টরীর নোটিশ বোর্ড, মূল গেটের সামনে, স্থানীয় এলাকায় বা ফ্যাক্টরীতে কর্মরতদের মাধ্যমে কর্ম খালির বিজ্ঞাপন প্রচার করা হয়।

শুধু প্রাপ্তবয়স্ক তথা ১৮ বছরের অধিক বয়সের ব্যক্তিদেরকে  গ্র“প নিয়োগ প্রদান করা হয়।শিক্ষা, অভিজ্ঞতা, প্রদর্শিত দক্ষতা, সামর্থ (নিয়োগের সময় পরীক্ষণ বাধ্যতামূলক), বয়সের প্রমাণপত্র এবং শারিরীক ও মানসিক সুস্থতার উপর ভিত্তি করে নিয়োগ প্রদান করা হয়ে থাকে।

এইচ.আর. অফিসার ও সংশ্লিষ্ট সুপারভাইজার/লাইন চীফ নিয়োগ প্রার্থীর বয়স অনুমান করার চেষ্টা করবে যে ১৮ বছরের কাছাকাছি কিনা। প্রার্থীর বয়স ১৮ বছরের অনেক কম মনে হলে তাকে ইন্টারভিউ বা নিযোগের জন্য পরবর্তী কোন পদক্ষেপ নেয়া যাবে না। যে সকল প্রার্থীদের বয়স ১৮ বছরের কাছাকাছি মনে হয় তাদেরকে কর্তব্যরত ডাক্তারের কাছে বয়স নিরূপনের জন্য নিতে হবে।

 

সকল ক্ষেত্রে, সকল প্রার্থকে অবশ্যই ডাক্তারের কাছে বয়স নিরূপণ ও সক্ষমতা প্রত্যয়নের জন্য নিতে হবে।

যদি ডাক্তারেরও কোন সন্দেহের উদ্রেক হয় যে, ব্যক্তির বয়স ১৮ বছর বা তার বেশি কিনা, তবে কোম্পানী তাকে নিয়োগে বিরত থাকবে।

কোন অবস্থাতেই কোন পদবীর জন্যই ১৮ বছরের নীচের বয়সের কোন ব্যক্তিকে নিয়োগের প্রস্তাব দেয়া যাবে না।

ডাক্তার দ্বারা বয়স নিরূপণ ও সক্ষমতা প্রত্যয়নের পর, এইচ.আর. অফিসার ও সংশ্লিষ্ট সুপারভাইজার/লাইন চীফ প্রার্থীর প্রাথমিক ইন্টাভিউ নিবেন এবং তা “নিয়োগের তথ্যাবলী” ফরমে লিপিবদ্ধ করবে।

ইন্টারভিউয়ের সময় প্রার্থী প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যেমন বয়স প্রমানের জন্য এস.এস.সি/এইচ.এস.সি/জাতীয় পর্যায়ের পরীক্ষার সনদপত্র বা নিবন্ধপত্র অথবা স্কুলের প্রত্যয়ণপত্র বা নাগরিকতা সনদপত্র বা চেয়ারম্যানের সনদপত্র।

এরপর প্রার্থীকে ব্যবহারিক দক্ষতা পরীক্ষার জন্য নির্দিষ্ট সেকশনে নিয়ে যাবে। ব্যবহারিক পরীক্ষার ফলাফলও উপরোক্ত ফরমে ফিপিবদ্ধ করতে হবে। উক্ত ফরমে সংশ্লিষ্ট সুপারভাইজার/লাইন চীফ প্রার্থীকে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করবেন।

চুড়ান্তভাবে বেতন ধার্য করবেন পি.এম এবং/বা ফ্যাক্টরী প্রধান। সর্বসাকুল্যে ধার্যকৃত বেতন উক্ত ফরমেই উল্লেখ করতে হবে।

বেতনের বিভিন্ন অংশ “নিয়োগ পত্রে” উল্লেখ করিয়া নিয়োগকর্তা উহাতে স্বাক্ষর করবেন। নতুন নিয়োগকৃত ব্যক্তিকে নিয়োগ পত্রে উল্লেখিত সকল শর্তাবলী পড়তে বলতে হবে অথবা সে পড়তে অপারগ হলে তাকে সকল শর্তাবলী পড়ে শুনাতে হবে। সে সর্ম্পূণভাবে বোঝার পর নিয়োগ পত্রে স্বাক্ষর করবে। নিয়োগ পত্রের এক কপি তাকে প্রদান করতে হবে।

নিয়োগ চুড়ান্ত হওয়ার পর, নতুন নিয়োগকৃত ব্যক্তিকে তার নিয়োগের প্রথম দিনেই সাময়িক আই.ডি কার্ড প্রদান করতে হবে। পরবর্তী ৩-৫ দিনের মধ্যে তাকে ছবিসহ স্থায়ী আই.ডি. কার্ড প্রদান করতে হবে।

চাকুরী সমাপ্তির ক্ষেত্রে, নিয়োগপত্রে স্বাক্ষরকারী কর্তৃপক্ষই চাকুরী অবসান পত্রে স্বাক্ষর করবেন।

চাকুরীর নিয়োগ নীতিমালাচাকুরীর নিয়োগ নীতিমালা

(শ্রমিক/কর্মচারী নিয়োগ লিখিত নীতিমালা ও যথাযথ  বাছাই এর প্রক্রিয়া)
১. সকল শ্রমিক/ কর্মচারী অথবা যে কোন ব্যক্তির নিয়োগ পার্সোন্যাল বিভাগ থেকে করা হয়। ২. সংশ্লি®ট বিভাগ থেকে শ্রমিক/কর্মচারী নিয়োগের অনুমোদিত রিকুইজিশন এবং প্রাপ্তি সাপেক্ষে সকল নিয়োগ পার্সোন্যাল বিভাগ থেকে করা হয়।৩. সংশ্লি®ট বিভাগের প্রয়োজন অনুসারে পার্সোন্যাল বিভাগ শ্রমিক/কর্মচারীদের কাগজপত্র প্রাথমিক পরীক্ষা করে প্রাথমিক বাছাই সম্পন্ন করে। ৪. প্রাথমিক বাছাই এর পরে শ্রমিকদেরকে ডাক্তারী পরীক্ষা ও বয়স যাচাই এর জন্য কোম্পানীর মেডিকেল সেন্টার এ রেজিঃ ডাক্তারের নিকট পাঠানো হয় । ৫.  ফ্যাশনস লিঃ, কোম্পানী নীতিমালা অনুযায়ী শুধুমাত্র প্রাপ্ত বয়স্ক শ্রমিক (র্সবনি¤ন ১৮ বছর) নিয়োগ  করা হয় ।৬. মেডিকেল যোগ্যতা সম্পন্ন প্রাপ্ত বয়স্ক শ্রমিককে যথাযথ সেকশনে দক্ষতা যাচাই এর জন্য প্রেরণ করা হয়। ৭. দক্ষতা যাচাই এর পর পার্সোন্যাল বিভাগ সকল কাগজ পত্র যাচাই করে। ৮. শ্রমিক/কর্মচারী রাষ্ট্রবিরোধী কোন কর্মকান্ডের সহিত জড়িত কিনা তাহা সনাক্ত করার জন্য স্থানীয় চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদত্ত চারিত্রিক সনদপত্র জমা নেওয়া হয়। এই সনদপত্র আরো প্রত্যয়ন করবে যে, সে নৈতিক চরিত্রের অধিকারী কি না। ৯. পার্সোন্যাল বিভাগ অভিজ্ঞতা সম্পন্ন শ্রমিকদের বাছাইকালীন সময়ে অপরাধ জনিত কর্মকান্ডের সহিত জড়িত বলে সন্দেহ  হলে স্থানীয় থানা থেকে পুলিশ ভেরিফিকেশন রিপোর্ট জমা দিতে হয়। উল্লেখ্য সিকিউরিটি ও প্যাকিং শ্রমিক নিয়োগের ক্ষেত্রে এই বিষয়ে বিশেষ মনোযোগ দেওয়া হয়। ১০. কোম্পানীর পরিচালক (এইচ.আর.ডি) এবং সিএফও কর্তৃক বেতন ধার্য ও অনুমোদন করা হয়। ১১. শ্রমিকের সকল কাগজ পত্র ব্যক্তিগত ফাইলে সংরক্ষন করা হয়। নতুন নিয়োগ প্রাপ্ত শ্রমিক/কর্মচারীকে নিয়োগ পত্র এবং শ্রমিক সহায়িকা দেওয়া হয়। তাকে ছবি সম্বলিত একটি পরিচয় পত্র দেওয়া হয়, যাহা কারখানায় প্রবেশের সময় নিরাপত্তা প্রহরীকে দেখাতে হয় এবং গলায় ঝুলিয়ে পরতে হয়।

পরিচিতি Mashiur

He is Garment Automation Technologist and ERP Soft Analyst for clothing industry. He is certified Echotech Garment CAD Professional-China, Aptech-India, NCC-UK and B.Sc. in CIS- London Metropolitan University, M.Sc. in ICT-UITS. He is working as a Successful Digital Marketer and Search Engine Specialist in RMG sector during 2005 to till now. Contact him- apparelsoftware@gmail.com

এটাও চেক করতে পারেন

নিয়োগ চুক্তি

একটি কারখানায় কিভাগে নিয়োগ চুক্তি করতে হয়?

নিয়োগ চুক্তি   নাম ঃ ………………………………………………………………., সেকশনঃ …………………….., নাম ঃ ………………………………………………………………., সেকশনঃ …………………….., পদবী ঃ ……………………………………….কার্ড নং …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।