বেতন ভাতা অথবা মজুরী সংক্রান্ত নীতিমালা গুলো কি কি?

বেতন ভাতা অথবা মজুরী সংক্রান্ত নীতিমালা গুলো কি কি?
বেতন ভাতা অথবা মজুরী সংক্রান্ত নীতিমালা গুলো কি কি?

বেতন ভাতা অথবা মজুরী সংক্রান্ত নীতিমালা

গ্র“পভুক্ত সকল শিল্প প্রতিষ্ঠান পুঙ্খানুপুঙ্খ হিসাব এবং সুষ্ঠ বিতরণের স্বার্থে বেতন ভাতাদী প্রদানের ক্ষেত্রে নিুলিখিত নীতিমালা অনুসরণ করবেন।

সাধারণ মাসিক বেতন ঃ কারখানায় কর্মরত নিয়মিত শ্রমিক, কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের সাধারণ মাসিক বেতন পরবর্তী মাসের ০৭ (সাত) কর্ম দিবসের মধ্যে পরিশোধ করা হবে।

সাময়িক অ-বিতরণকৃত বেতন ঃ যে সকল শ্রমিক, কর্মচারী ও কর্মকর্তা নিয়মিত মাসিক বেতনের সীট  এর অন্তর্ভূক্ত আছেন কিন্তু বেতন প্রদানের দিন অনুপস্থিতির জন্য বেতন উত্তোলন করতে পারেননি তাদের ‘‘সাময়িক অ-বিতরণকৃত বেতন’’ শ্রেনীভূক্ত করা হবে এবং একই মাসের ২০ তারিখে বেতন উত্তোলনের সুযোগ প্রদান করা হবে (যদি ২০ তারিখ কোন বন্ধ থাকে তবে পরবর্তী কার্যদিবসে উক্ত বেতন প্রদান করা হবে।)।

রিজাইন স্যালারী ঃ যে সকল শ্রমিক, কর্মচারী শ্রম আইনানুযায়ী পদত্যাগ করবেন তাদের নাম রিজাইন সেলারী শীটে অন্তর্ভূক্ত হবে। এই শ্রেনীভুক্ত ব্যক্তিগণের বেতন যে মাসে পদত্যাগ করেছেন তার পরবর্তী মাসের ২০ তারিখে প্রদান করা হবে (যদি ২০ তারিখ কোন বন্ধ থাকে তবে পরবর্তী কার্যদিবসে উক্ত বেতন প্রদান করা হবে।)।

টারমিনেট স্যালারী ঃ দীর্ঘ অনুপস্থিতি বা অন্য যেকোন কারণে বরখাস্তকৃত ব্যাক্তিগণ এক্সেল শীটে অন্তর্ভূক্ত হবেন কিন্তু উক্ত শীটটি প্রিন্ট করা হবে না। এই শ্রেনীভুক্ত ব্যাক্তিগণ যদি তার পাওনাদি নিতে আসেন তাহলে চাকুরীর শর্তাবলী পূরণ করে উক্ত ব্যাক্তিগণের বেতন চাকুরী অবসান বা বরখাস্ত হবার পরবর্তী দ্বিতীয় মাসের ২০ তারিখে প্রদান করা হবে (যদি ২০ তারিখ কোন বন্ধ থাকে তবে পরবর্তী কার্যদিবসে উক্ত বেতন প্রদান করা হবে।)

স্থায়ী অ-বিতরণকৃত বেতন ঃ যে সকল বরখাস্তকৃত শ্রমিক তাদের বেতন উত্তোলনের নির্ধারিত দিনসমুহের মধ্যে উত্তোলন করবেন না, তারা ‘‘অ-বিতরণকৃত বেতন’’ শ্রেনীভুক্ত হবেন। এই শ্রেনীভুক্ত শ্রমিক/কর্মচারীদের বেতন প্রদানের ক্ষেত্রে স্থানীয় শ্রম আইনে বর্ণিত প্রক্রিয়া যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।

অন্য কোন ব্যক্তির মাধ্যমে বেতন উত্তোলন/বেতন হস্থান্তর ঃ যদি কোন শ্রমিক/কর্মচারী যে কোন কারণে স্বশরীরে কারখানায় হাজির হয়ে বেতন উত্তোলন করতে না পারেন তবে সংশ্লিষ্ট শ্রমিক/কর্মচারী তার মনোনীত এবং কারখানায় কর্মরত অন্য কোন ব্যক্তি মারফত বেতন উত্তোলন করতে পারবেন বা বেতন হস্তান্তর করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে শর্ত থাকে যে, বেতন প্রদানের তারিখের কমপক্ষে সাত দিন পূর্বে কারখানার নির্ধারিত ফরমে এবং প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আবেদন করে ব্যবস্থাপনা পরিচালকের অনুমোদন নিতে হবে।

ক) বেতন গ্রেড ঃ গ্র“প এর সকল কারখানার শ্রমিক ও কর্মচারীদের মূল বেতনের ৩০% বাড়ী ভাড়া ও ২০০/- টাকা চিকিৎসা ভাতা ধরে সর্বমোট বেতন নিুে বর্ণিত গ্রেড সমূহে প্রদান করে ঃ

গ্রেড মজুরী বাসা ভাড়া ভাতা চিকিৎসা ভাতা সর্বমোট
১ ৩৮০০.০০ ১১৪০.০০ ২০০ ৫১৪০.০০
২ ২৮০০.০০ ৮৪০.০০ ২০০ ৩৮৪০.০০
৩ ১৭৩০.০০ ৫১৯.০০ ২০০ ২৪৪৯.০০
৪ ১৫৭৭.০০ ৪৭৩.০০ ২০০ ২২৫০.০০
৫ ১৪২০.০০ ৪২৬.০০ ২০০ ২০৪৬.০০
৬ ১২৭০.০০ ৩৮১.০০ ২০০ ১৮৫১.০০
৭ ১১২৫.০০ ৩৩৮.০০ ২০০ ১৬৬৩.০০

সর্বমোট বেতন ঃ মূল বেতন + বাড়ী ভাড়া ৩০% + চিকিৎসা ভাতা ২০০.০০ টাকা।

খ) ওভার টাইম ঃ স্বাভাবিক কর্মঘন্টার অতিরিক্ত কাজ করলে শ্রমিকদের ওভারটাইম মজুরী নিুে বর্ণিত হিসাব মত দেওয়া হয় ঃ

ওভারটাইম প্রতি ঘন্টা ঃ

গ) টিফিন ভাতা ঃ ১০ টাকা।

ঘ) বেতন ও ভাতা পরিশোধ ঃ  গ্র“প এর সকল শ্রমিককে পরবর্তী ৭ম কর্মদিবসের মধ্যে বেতন ও ভাতা পরিশোধ করা হয়। বেতন ও ভাতাদি প্রদানের পূর্বে কর্তৃপক্ষ প্রত্যেক শ্রমিকের বেতনের হিসাব লিপিবদ্ধ কওে বাংলায় পে-¯¬ীপ প্রদান করে থাকেন।

২। অন্যান্য সুবিধাদি ঃ

ক) ৫৫% হারে বোনাস বৎসরে ২টি (নূন্যতম ১ বৎসরে চাকুরী করা সাপেক্ষে )।

খ) যোগ্য কর্মীকে বাৎসরিক বেতন বৃদ্ধি ও পদোন্নতি করা হয়।

গ) উপস্থিতি বোনাস  ঃ মাসের সকল কর্মদিবসে উপস্থিত থাকলে শ্রমিক তার হাজিরা বোনাস পাবেন। বর্তমানে প্রতিমাসে ১৫০/- টাকা হাজিরা বোনাস প্রদান করা হচ্ছে।

ঘ) প্রভিডেন্ট ফান্ড  ঃ চাকুরী স্থায়ীকরণের পর শ্রমিককে কন্ট্রিবিউটরি প্রভিডেন্ট ফান্ডের সুবিধা প্রদান করা হবে।

ঙ) শ্রমিকদের দৈনন্দিন কার্যক্রমের বাইরেও তাদেরই চিত্তবিনোদনের জন্য কোম্পানী নিজ খরচে বাৎসরিক বনভোজনের আয়োজন করে থাকে।

By Mashiur

He is Top Class Digital Marketing Expert in bd based on Google Yahoo Alexa Moz analytics reports.. He is certified IT Professional from Aptech, NCC, New Horizons & Post Graduated from London Metropolitan University (External) in ICT. Cell# +880 1792525354. যোগাযোগ এর জন্য নিম্নে Leave a Reply এ গিয়ে কমেন্টস Comments করুন

5 comments

Leave a Reply