সেইফটি কমিটি এর কার্যপরিধি গুলো কি কি? নিরাপওা গাইডলাইন সহ

সেফটি কমিটি

সেইফটি কমিটি কার্যপরিধি

সেইফটি কমিটি – কারখানা বা শিল্প-প্রতিষ্ঠান আইনের ষষ্ঠ্য অধ্যায়ে বর্ণিত নিরাপত্তা এবং সপ্তম অধ্যায়ে বর্ণিত নিরাপত্তা সর্ম্পকে বিশেষ বিধান ও সংশ্লিষ্ট বিধিসমূহের যথাযথ প্রতিপালন নিশ্চিত করিবার উদ্দেশ্যে স্বীয় দায়িত্বের  বর্ননাসহ একটি গাইডলাইন বা নির্দেশনা বহি প্রস্তুত করিবে। কমিটির  কার্যকলাপ  বাস্তবায়ন করার জন্য সভাপতিকে  যথাযথ পরামর্শ প্রদান ও সহযোগীতা  করা। কমিটির কার্যকলাপ বাস্তবায়ন করার জন্য সবধরনের পরামর্শ  ও  নির্দেশ  প্রদান করা এবং   যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা।সেইফটি কমিটি বাংলাদেশ শ্রম বিধিমালা ওনুজায়ে লিখিত দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করিবে …

সেইফটি কমিটির উপকারিতা :-

প্রতিষ্ঠানে একটি কার্যকর সেইফটি কমিটি প্রতিষ্ঠা করা যায় তাহলে উক্ত নি¤েœাক্ত সমস্যা সমূহ হতে রক্ষা পাওয়া যাবে ।

  • চিকিৎসাজনিত ব্যয় ।
  • ক্ষতিপূরণমূলক ব্যয় ।
  • আহত শ্রমিকদের কারণে সময়ের অপব্যয় ।
  • তার কারনে তার সহকর্মীদৈর সময়ের অপব্যয় ।
  • আহত ব্যক্তির সাথে সংশ্লিষ্ট সুপারভাইজারের সময়ের অপব্যয় ।
  • কর্মচারীদের জন্য প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করতে পারে ।
  • প্রতিষ্ঠানের উন্নতি বিধানের ক্ষেত্রে কর্মচারীদের সংশ্লিষ্টতা বৃদ্ধি পায় ।
  • আহতজনিত দূর্ঘটনার কারণে দ্রব্যজনিত অপব্যয় ।
  • ভোক্তার অসন্তুষ্টি ।সময়সূচী সংμান্ত কালক্ষেপন ।
  • কার্যকর কমিটি থাকলে প্রতিষ্ঠানে দূর্ঘটনাজনিত ঝুকিঁ কমে যায় । যার ফলে, প্রতিষ্ঠানের অপ্রয়োজনীয় ব্যয় কমে যায় এবং মুনাফা বৃদ্ধি পায় ।
  • ম্যানেজমেন্ট ও সাধারণ কর্মচারীদের মধ্যে যোগাযোগ ও আস্থা বৃদ্ধি পায় ।
  • সমস্যা সমাধানকারী দল কেউ প্রতিষ্ঠানের কর্মপরিবেশের অব¯হা ও মান সর্ম্পকে জানতে তাদেরকে যথাযথ ধারনা প্রধান করতে পারে ।

সেফটি কমিটির কার্য পরিধিঃ

সম্পূর্ন  কর্মক্ষেত্রে  আতœরক্ষামুলক সরঞ্জামাদির  সুষ্ট ব্যবহার  ক্যামিক্যাল ম্যানেজমেন্ট এবং পরিবেশ রক্ষামুলক সব ধরনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা  এবং  সভাপতিকে রিপোর্ট করা ।

  • দূর্ঘটনা ও স্বাস্থ্য সর্ম্পকিত ও অসুস্থতাজনিত ঘটনার রিপোর্ট করা এবং সংশ্লিষ্ট সকল ধরনের নিরাপত্তা  কমিটির সকলের সাথে যোগাযোগ ও  সভাপতিকে রিপোর্ট করা পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপওা গাইডলাইন বা নির্দেশনা বহিতে নির্দেশিত বিষয়সমূহের বাস্তবায়ন নিশ্চিত করিবার জন্য এবং কারখানা বা প্রষ্ঠিানের উৎপাদন প্রক্রিয়া, ভৌত কাঠামো, কর্মেও প্রকৃতি ও ধরন, মালামাল সংরক্ষণ ও পরিবহন, কাচাঁমাল-কেমিকেলের ধরন ও ব্যবহার এবং সেবার ধরন অনুযায়ী শ্রমিকদের জীবন ও স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর ঝূঁকিসমূহ চিহ্নিত করিবার লক্ষ্যে সেফটি কমিটি চেক-লিষ্ট প্রণয়ন করিবে।
  • কারখানা বা শিল্প-প্রতিষ্ঠান এবং উহাতে নিয়োজিত শ্রমিকসহ, সকলের নিরাপওা বিষয়ে আইন ও প্রচলিত অন্যান্য বিধি-বিধানের বাস্তবায়ন প্রক্রিয়ার সংশ্লিষ্ট মালিক বা কর্তৃপক্ষকে সহযোগিতা করা। সম্পূর্ন  কর্মক্ষেত্রে  ইলেকট্রিকেল ,মেকানিকেল সংক্রান্ত  সব ধরনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং  সুষ্ট  পরিকল্পনা  বাস্তবায়ন ব্যবহার করা  এবং  চাহিদা আনুযায়ী সভাপতিকে  রিপোর্ট করা ।
  • এই তফসিল অনুযায়ী প্রণীত চেক-লিষ্ট অনুসারে নিরাপওা সংশ্লিষ্ট ঝুঁকি বা ঘাটতি সমূহ চিহ্নিত করা এবং উহা দূরীকরণে মালিক বা কর্তৃপক্ষের নিকট সুপারিশ করা।কর্মকালীন সময় আয়রন সেকশন ,স্পট রিমোভিং এবং ফিনিশিং সেকশনের সকল ধরনের  নিরাপত্তা নিশ্চিত করা  এবং চাহিদা আনুযায়ী সভাপতিকে  রিপোর্ট করা ।
  • কর্মস্থল ও কর্মরত শ্রমিকদের পেশাগত নিরাপওা বিধানে সংশ্লিষ্ট বিষয়াদি পর্যালোচনা, মালিক বা কর্তৃপক্ষ বরাবর সুপারিশ প্রদান এবং শ্রমিক-কর্মচারী ও সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তিগনকে এতদবিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান ও সচেতনতা বৃদ্ধি করা। কোয়ালিটি সেকশনের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করন করা।
  • সেফটি কমিটি মাসিক বা ত্রৈমাসিক ভিওিতে মালিক বা ব্যবস্থাপক বরাবরে নির্ধারিত চেকলিষ্ট ও ফরমে সুপারিশসহ প্রতিবেদন দাখিল করিবে।তবে শর্ত থাকে যে, কোন সময় কোনরুপ ত্রুটি-বিচ্যুতি বা আইন বা এই বিধিমালার কোন বিধানের লংঘন প্রতীয়মান হইলে, উহা সমাধানের জন্য তাৎক্ষণিকভাবে মালিক বা কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিত আকারে সুপারিশ পেশ করিবে।
  • এই বিধিমালার ষষ্ঠ অধ্যায়ে বর্ণিত অগ্নিনির্বাপণ, জরুরী উদ্ধার ও প্রাথমিক চিকিৎসা দল গঠন এবং প্রশিক্ষণ ও মহড়া পরিচালনা করা।
  • আইনের নিরাপওা সংক্রান্ত বিধান ও কমিটির সুপারিশ বাস্তবায়ন পর্যবেক্ষন ও মনিটর বা নিরীক্ষন, রিপোর্ট সংরক্ষন ও প্রয়োজনে সময়ে সময়ে কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর কর্তৃক পরিদর্শনের জন্য প্রস্তুত রাখা।
  • ধারা ৩২৩ অনুযায়ী গঠিত জাতীয় শিল্প, সেফটি কাউন্সিল কর্তৃক প্রণীত নীতিমালা ও দিকনির্দেশনার আলোকে যথাযথ ভূমিকা পালন ও নীতিমালা বাস্তবায়নে মালিক কর্তৃপক্ষকে সহযোগিতা করা।
  • প্রতিষ্ঠানে র্কমরত লোকদের সেইফটি কমিটির সাথে সম্পৃক্ত যাবতীয় বিষয়াবলী সম্পর্কে সঠিক সময়ে নিরসনের জন্য উপযুক্ত ব্যব¯হা গ্রহনে সহায়তা করা ।
    কার্যকর সুপারিশমালা প্রকাশের মাধ্যমে অত্র কোম্পানী উন্নতি সাধনে সহায়তা করা 
  • একটি জোড়ালো সেইফটি কমিটি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় সহযোগীতা প্রদান ।
    সেইফটি জনিত যাবতীয় সমস্যা সমূহের সমাধান কল্পে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদেরকে একইসাথে একএীভূত করে প্রয়োজনীয় সহায়তামূলক প্রচেষ্টার মাধ্যমে একটি সমন্বিত প্রয়াসের ব্যব¯হা করা ।
  • সেইফটি কমিটির সাথে সংশ্লিষ্ট প্রত্যেক সদস্যকে একজন লীডার হিসেবে আতœপ্রকাশ করার ব্যবস্থা করা ।
  • প্রয়োজনীয় ও কার্যকর সুপারিমালার প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের উন্নতি বিধানে সহায়তা করা ।
  • কমিটির কার্যμমের ক্ষেত্রে মূল্যায়ন ও সহায়তামূলক প্রচেষ্টার সাহায্যে একটি কার্যকর জবাবদিহিমূলক ব্যবস্থার গোড়াপত্তন করা ।
  • একটি কার্যকর সেইফটি কমিটি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় সহযোগীতা প্রদান ও তার কার্যμমের মূল্যায়নের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কমিটিকে সহায়তা দান ।
  • ঝূঁকিপূর্ণ ক্ষেত্রসমূহ চিহ্নিতকরণ (যেমন-ভবনের অংশবিশেষ, সিঁড়ি, প্রাঙ্গন, বৈদ্যুতিক লাইন, মেশিনপত্র) ইত্যাদি।
  • পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বিষয়ে প্রাপ্ত প্রশিক্ষণের বাস্তবায়ন করা।
  • কোন শিল্প বিরোধ উত্থাপন না করা এবং শিল্প বিরোধ সংক্রান্ত কোন বিষয়ে পক্ষ না হওয়া। ক্যান্টিন  এবং ডাইনিং হল সংক্রান্ত  তথ্য  পর্যালোচনা।
  • ঝূঁকির প্রকৃতি (যেমন-ফাটল, কর্মকালীন সময়ে তালাবদ্ধ গেইট, বিপজ্জনক বৈদ্যুতিক সংযোগ, ইত্যাদি)।
  • ঝূঁকির মাত্রা বা স্তর ( যেমন-উচ্চ/মধ্যম/সাধারন/সন্তোষজনক নয়)
  • আশু করণীয় নির্ধারন ( যেমন-ব্যবহার নিষিদ্ধ, তাৎক্ষণিকভাবে মেরামত-সংস্কার, বন্ধকরণ)
  • ঝূঁকির প্রকৃতি ও স্তরভেদে প্রয়োজনীয় সুরক্ষা পদ্ধতি নির্ধারণ এবং কারিগরি ও প্রশাসনিক দায়বদ্ধতা নিরুপণ। সুইং ফ্লোরের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করন করা।
  • কমিটি গঠনের পরবর্তীতে কোন সদস্যের পদত্যাগ, চাকরি হইতে অবসর, চাকরি ত্যাগ, মৃত্যু বা অন্য কোন যৌক্তিককারণে সদস্য পদ শূন্য ঘোষিত হইলে সেইফটি কমিটির কমপক্ষে দুই-তৃতীয়াংশ সদস্যের সমর্থনμমে উক্ত শূন্য পদ পূরণ করা যাইবে :
  • তবে শর্ত থাকে যে, শ্রমিক প্রতিনিধি শ্রমিকগণের মধ্য হইতে এবং মালিক প্রতিনিধি মালিক দ্বারা মনোনীত প্রতিনিধি হইবেন। ইলেট্রিক্যাল সর্ম্পকিত নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং রিপোর্ট করা । 
  • সেইফটি কমিটির কোন সদস্য পদে কোনরূপ পরিবর্তন ঘটিলে পরিবর্তন হইবার ১৫(পনের) দিনের মধ্যে মহাপরিদর্শক বা তৎকর্তৃক ক্ষমতাপ্রাপ্ত পরিদর্শককে অবহিত করিতে হইবে।

সভাপতির কার্যাবলী :-

  • কমিটির প্রতিটি সভার জন্য প্রয়োজনীয় এজেন্ডা তৈরি করা ।
  • কমিটির সভা অনুষ্টিত করার জন্য মিটিং রুমের ব্যবস্থা করা ।
  • কমিটির সকল সদস্যদেরকে মিটিংয়ের দিন তারিখ সর্ম্পকে অবহিত করা ।
  • কমিটির সভার জন্য যে সকল এজেন্ডা নির্ধারিত হয় সে সকল এজেন্ডা গুলো কমিটির সকল সদস্যদেরকে সরবরাহ করা ।
  • কমিটির সকল সদস্যদেরকে তাদের নিজ নিজ দ্বায়িত্ব সমুহ যথাযথভাবে বন্টন করে দেওয়া ।
  • কমিটিকে ব্যবস্থাপক ও কর্মচারীদের সমন্বিত কর্মপ্রয়াসের অনুঘটক হিসেবে কাজ করতে হবে ।
  • নিয়মিত বিরতিতে সভার বন্দোবস্ত করতে হবে ।
  • প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক ও কর্মচারীদের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় বিধি বিধানের প্রচলন ।
  • প্রয়োজনের নিরিখে কমিটির সাথে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপ¯িহতি ।
  • প্রতিষ্ঠানের ব্যব¯হাপক ও কর্মচারীদের মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা উভয় মূখীভাবে কার্যকর কিনা তার নিশ্চয়তা বিধান ।কমিটির দ্বায়িত্ব গ্রহন ও সভা পরিচালনা করা ।
  • কমিটিকে সঠিকভাবে পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় প্রতিবেদন তৈরী করা ।
  • কমিটিকে কার্যকর করার জন্য প্রতিষ্ঠানের মালিকের সাথে প্রয়োজনীয় যোগাযোগ স্থাপন
  • সভায় গৃহীত সুপারিশসমূহের সর্বশেষ পরিস্থিতি সর্ম্পকে প্রতিবেদন তৈরী করা ।

সেইফটি কমিটি সারাংশ

মেকানিক্যাল  সর্ম্পকিত নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং রিপোর্ট করা । নিডেল সংক্রান্ত সকল ধরনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং যথাযথ  তথ্য সম্পর্কে সভাপতিকে  রিপোর্ট করা ।

By Mashiur

He is Top Class Digital Marketing Expert in bd based on Google Yahoo Alexa Moz analytics reports. He is open source ERP Implementation Expert for RMG Industry. He is certified IT Professional from Aptech, NCC, New Horizons & Post Graduated from London Metropolitan University (External) in ICT . You can Hire him. Email- [email protected], Cell# +880 1792525354

Leave a Reply